ত্বকের যত্নে ক্লেনজিং হোক সঠিকভাবে - Chuadanga News | চুয়াডাঙ্গা নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ

Sidebar Ads

test banner

Breaking

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Sunday, November 22, 2020

ত্বকের যত্নে ক্লেনজিং হোক সঠিকভাবে


বাহিরের ধুলাবালি, মেকআপ আর পল্যুশন- এ সবকিছুর প্রভাবই সরাসরি পড়ে আমাদের ত্বকের ওপর। আর এসব কিছু থেকে ত্বককে পরিষ্কার করতে দরকার প্রপার ক্লেনজিং। প্রপার ক্লেনজিং এর অভাবে আমাদের নেওয়া ত্বকের যত্ন পুরোটাই ভেস্তে যেতে পারে। কেননা বাহিরের এই ডাস্ট এন্ড ডার্ট আপনার স্কিনের পোরসকে ক্লগ করে দিতে পারে। 


যার ফলাফলে দেখা দিতে পারে পিম্পল, ব্ল্যাক হেডস, হোয়াইট হেডস সহ নানান সমস্যা। আর ত্বককে পরিষ্কার করার জন্য আমরা ব্যবহার করি বিভিন্ন ফেইসওয়াস ও ক্লেনজার। কিন্তু মাঝে মাঝে ত্বকের গভীরে থাকা ময়লা পরিষ্কার হয়না। তাই অনেকেই আবার পার্লারে ফেসিয়াল স্পা করে থাকি। কিন্তু ঘরে বসেই যদি প্রপার ক্লেনজিং এবং ফেসিয়াল স্পা পাওয়া যায় তবে কেমন হয়, বলুন তো? আর তাই আজকে কথা বলবো, ফাইভ ইন ওয়ান গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশ নিয়ে, যা আমাদের স্কিনকে ভেতর থেকে ময়লা পরিষ্কার করতে সাহায্য করবে এবং ঘরে বসেই পাবেন ফেসিয়াল স্পা এর মতো ট্রিটমেন্ট। তো চলুন শুরু করা যাক।


গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশ সেটের বিবরণ

গ্রুমি ফাইভ ইন ওয়ান ফেসিয়াল ক্লিনিং ব্রাশ সেটটি একটি ব্যাটারি চালিত ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশ সেট। এতে রয়েছে ২টি সেটিং মোড। লো এবং হাই। লো মোডটি প্রতিদিনকার ক্লেনজিং এর জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে, এবং হাই মোডটি উইকলি স্কিন এক্সফলিয়েশনের জন্য ব্যবহার হয়ে থাকে। সেটটিতে ৫ ধরনের ব্রাশ রয়েছে, যা আপনি আপনার প্রয়োজন ভেদে ব্যবহার করতে পারবেন।


১. মেকআপ স্পঞ্জ

মেকআপ রিমুভিং এর ক্ষেত্রে এই স্পঞ্জটি ব্যবহার হয়ে থাকে। মেকআপ রিমুভ করার জন্য অয়েল ক্লেনজার ব্যবহারের পর ভেজা ত্বকে ফেইসওয়াস এপ্লাই করে এই স্পঞ্জটি দিয়ে আপনি আপনার ত্বক  পরিষ্কার করতে পারবেন খুব সহজেই।


২. নায়লন ব্রাশ

ত্বকে অতিরিক্ত সেবাম প্রোডাকশন কমিয়ে একনে বা ব্রণের সমস্যা কমাতে ক্লেনজিং ব্রাশ বেশ কার্যকরী। আর গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশ সেটটির সফট ব্রিসেলস যুক্ত এই ব্রাশটি দিয়ে ত্বককে ভালোভাবে এক্সফলিয়েট করতে পারবেন আপনি। এর ব্যবহার আপনার স্কিনকে এক্সফলিয়েট করবে এবং স্কিনে জমে থাকা ডেডসেলস দূর করতে সাহায্য করবে।


৩. স্যান্ড ম্যাসাজ হেড

এই স্যান্ড ম্যাসাজ হেড কিছুটা খসখসে একটি এক্সফলিয়েটর ব্রাশ। এটি খুবই আলতো হাতে ব্যবহার করতে হয়। 


স্কিনে বেশি জোর দিয়ে এক্সফোলিয়েট করলে স্কিনের জন্য তা ক্ষতিকর। এই স্যান্ড ম্যাসাজ হেড স্কিনে রেগুলার ইউজের জন্য নয়। স্কিনে সিস্টিক একনে কিংবা পিম্পল থাকলে এটি ব্যবহার না করাই ভালো।


৪. ম্যাসাজ হুইল

সারাদিনের ক্লান্তি দূর করার জন্য এই ফেইস ম্যাসাজ হুইলটি খুবই কার্যকরী। এটি দিয়ে  দিয়ে আপনি খুব সুন্দর করে আপনার ফেইস ম্যাসাজ করতে পারবেন। এতে আপনার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে এবং ত্বককে দেখাবে গ্লোয়িং। 


এছাড়া শিট মাস্ক ব্যবহারের পর এই ম্যাসাজার দিয়ে ম্যাসাজ করলে শিট মাস্কের এসেন্স সহজেই স্কিনে এবসরভ হয়ে যায়। এতে শিট মাস্কের কার্যকারিতাও বহুগুণে বেড়ে যায়।


৫. ল্যাটেক্স সফট স্পঞ্জ

আমাদের ত্বকের একেক অংশের সংবেদনশীলতা একেক রকম। যেমন- চোখের নিচের অংশ গাল কিংবা কপাল থেকে বেশি সেন্সেটিভ। তাই এর জন্য দরকার সফট কিছু। আর এই ল্যাটেক্স স্পঞ্জটি দিয়ে আপনি চোখের নিচের ক্লেনজিং সহ ত্বকের অন্যান্য অংশেও ব্যবহার করতে পারবেন।


এই  ছিল গ্রুমি ফাইভ ইন  ওয়ান ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশের পরিচিতি। এবার এর কার্যকারিতা সম্পর্কে জানা যাক।


গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশটির কার্যকারিতা

১. ত্বকের গভীর থেকে ময়লা এবং ডেডসেল পরিষ্কার করতে করতে করে।


২. ত্বকে নিয়মিত ব্যবহার করলে ফাইনলাইনস বা বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করবে।


৩. ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে, এতে ত্বক হয় উজ্জ্বল।


৪. সেটটির ম্যাসাজ ব্রাশ ত্বকের জন্য বেশ রিল্যাক্সিং।


৫. শিট মাস্ক ব্যবহারের পর এই ক্লেনজিং ব্রাশটির ম্যাসাজার দিয়ে ম্যাসাজ করলে শিট মাস্কের এসেন্স দ্রুত স্কিনে এবসরভ করবে।


৬. অনেক সময় হাত দিয়ে জোরে ত্বকে ফেইসওয়াস কিংবা ক্লেনজার ব্যবহার করার কারণে ত্বকের চামড়া ঝুলে যায়। 


কিন্তু এই ব্রাশ সেটটি আপনাকে এ ধরনের সমস্যা থেকে দিবে মুক্তি।


৭. ঘরে বসেই করতে পারবেন ফেইসের প্রপার ক্লেনজিং, যা বাজেট ফ্রেন্ডলি এবং সময় সাশ্রয়ী।


গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশ ব্যবহার করে আমার অভিজ্ঞতা

গ্রুমির এই ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশটি এখন আমার প্রতিদিনের সঙ্গী। সারাদিন পর বাহির থেকে এসে ব্রাশ সেটটি ব্যবহার করে মুখ ক্লিন করার পর ত্বক বেশ পরিষ্কার মনে হচ্ছে।  প্রতিদিনকার ক্লেনজিং এর জন্য আমি লো মোড ব্যবহার করেছি এবং সপ্তাহে ১/২ দিন এক্সফলিয়েট করার জন্য হাই মোডে ব্যবহার করেছি। আর রেগুলার ব্যবহারে আমার ব্ল্যাকহেডসও কমে গিয়েছে। এই ৫টি ব্রাশের মধ্যে আমার ম্যাসাজ হুইল খুব ভালো লেগেছে। এটি ব্যবহারের পর ত্বকে খুব রিফ্রেশিং একটি অনুভুতি দেয়। অফিস কিংবা কাজের চাপে যাদের পার্লারে যেয়ে স্পা নেয়ার সময় হয়ে ওঠে না তাদের জন্য  এই সেটটি ব্যবহার করাটা বেশ টাইম অ্যান্ড বাজেট ফ্রেন্ডলি একটি অপশন। ব্যাটারি চালিত এই ক্লেনজিং ব্রাশ সেটটি খুবই হ্যান্ডি। বাসা হোক কিংবা ট্যুর,আপনি সহজেই এটি ক্যারি করতে পারবেন কোনো ঝামেলা ছাড়াই।

এই ছিল আমার ফাইভ ইন ওয়ান গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশের রিভিউ। আশা করছি, রিভিউটি আপনাদের জন্য হেল্পফুল ছিল। আমি গ্রুমি ফেসিয়াল ক্লেনজিং ব্রাশটি কিনেছি সাজগোজ থেকে। আপনারা চাইলে সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ ভিজিট করতে পারেন, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত। আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here